৫টি কাজ করে আয় করুন মাসে ৩০ হাজার টাকা

    ৫ টি কাজ করে ৩০ হাজার টাকা আয়
    পোস্টটি শেয়ার করুন !

    বর্তমান সময়ে অনলাইনে ইনকাম করা কঠিন কিছু নয়। বর্তমান তথ্য প্রযুক্তির যুগে সবকিছু অনলাইন ভিত্তিক হওয়ায় বিভিন্ন কাজের চাহিদাই অনলাইন ইনকাম করার ব্যাপক সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছে। যারা এই সুযোগকে কাজে লাগাতে চায়, অনুভব করতে পারে, তাদের কাছে ২০২১ সালে অনলাইনে ইনকাম করা নিতান্তই ডালভাত। এই লেখাতে আমরা অনলাইনে টাকা ইনকাম করার ৫টি সহজ উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

    মনোযোগ দিয়ে লেখাটি পড়লে অনলাইনে আয় করার বিভিন্ন উপায় এবং তাদের গ্রহণযোগ্যতা সম্পর্কে আপনার আর কোনো সন্দেহ থাকবে না। সেইসাথে উপলব্ধি করতে পারবেন, অনলাইনে কাজ ও টাকা আয় করার সুযোগের ব্যাপকতা।

    ব্লগিং – দীর্ঘস্থায়ী আয়

    তথ্য একটা সময় বই কেন্দ্রিক ছিল। এখন সেটা অনলাইন নির্ভর হয়ে গেছে। গুগলে কোনো বিষয় বা শব্দ লিখে সার্চ দিলেই হাজার হাজার রেজাল্ট চলে আসে।

    অনলাইন ইনকাম এর সবচাইতে জনপ্রিয় এবং কার্যকরী পদ্ধতি বা উপায় হচ্ছে ব্লগিং। আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে ভালোমানের ব্লগ বা আর্টিকেল লিখে ব্লগকে জনপ্রিয় করতে পারলে ব্লগিংয়ের মাধ্যমে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

    পার্ট টাইম এবং ফুলটাইম পেশায় পরিণত করতে ব্লগিং অন্যতম। প্রথমাবস্থায় ব্লগিংয়ে ইনকাম করতে হলে আপনাকে বেশ কিছু সময় দিতে হবে।

    আপনি যদি একবার কাজটা আয়ত্ব করে প্রথম ২-৩ মাস একটু কষ্ট  করতে পারেন, তাহলে আপনি অনেক ফুল টাইম চাকুরিজীবির চেয়ে অনেক বেশি সম্মানজনক ইনকাম করতে পারবেন এই সেক্টর থেকে। 

    প্রাথমিকভাবে, ব্লগিং শুরু করার জন্য তৈরী করার প্রয়োজন পড়বে একটি ওয়েবসাইট। ওয়েবসাইট তৈরীর জন্য একটি ডোমেইন ও হোস্টিং কিনতে হয়। প্রথম অবস্থায় সব মিলিয়ে খরচ হয় ১৫০০-২০০০ টাকার মতো। তবে “Blogger” নামে গুগলের নিজস্ব প্লাটফর্ম এ যদি আপনি ওয়েবসাইট তৈরী করেন, তবে হোস্টিং ও সাব ডোমেইন ফ্রি পাবেন আজীবনের জন্য।

    ওয়েবসাইট তৈরীর পর সেখানে কপিরাইট মুক্ত ভালো মানের অনেকগুলো আর্টিকেল এবং গুরুত্বপূর্ণ কিছু পেজ তৈরী করতে হয়। এরপর এ্যাডসেন্সের জন্য আবেদন করা যায় গুগলে। আবেদন গ্রহন করা হলে ওয়েবসাইটে গুগলের বিজ্ঞাপন প্রদর্শিত হবে। ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে আসা কেউ ঐসব বিজ্ঞাপনে ক্লিক করলে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা এ্যাকাউন্টে যুক্ত হবে।

    প্রতিদিন নিত্য নতুন আর্টিকেল লিখতে থাকলে একসময় দেখবেন আপনার সাইটে ভিজিটর আসা শুরু হচ্ছে। আর যখনি দেখবেন আপনার সাইটে ভিজিটর আসছে তখনি আপনার আয় হওয়া শুরু হবে এরপর আর পিছন ফিরে তাকাতে হবে না।  

    ফ্রিতে ব্লগ তৈরীর করার জন্য অনেক সাইট আছে তারমধ্যে জনপ্রিয় কিছু সাইট হল-  সাইট ডট গুগল ডটকম, ব্লগার ডট কম বা ওয়ার্ডপ্রেস ডটকম এ আপনি চাইলে ১০ মিনিটেই অনেক ভালোমানের ফ্রি ব্লগ সাইট তৈরী করতে পারবেন ।

    এছাড়াও বিভিন্ন অনলাইন ইনকাম সাইট যেমন – B. Michelle Pippin, Copyhackers, DesertUSA, Earth Island Journal, Freedom with Writing, Freshbooks Blog রয়েছে যেখানে আপনি চাইলেই আপনার ব্লগিং পেশা শুরু করতে পারবেন।

    ভার্চ্যুয়াল সহকারী

    ভার্চুয়াল পেশাদার হিসাবেও পরিচিত, ভার্চুয়াল সহকারীরা মূলত দূরবর্তী প্রশাসনিক সহকারী। ভার্চুয়াল সহকারী সাধারণত বাড়ি থেকে কাজ করেন, এমন কাজ সম্পাদন করেন যা প্রশাসনিক সহকারী বা সচিব সাধারণত করতেন। উদাহরণস্বরূপ, তারা অ্যাপয়েন্টমেন্টের সময় নির্ধারণ করা, ফোন কল করতে পারা, ভ্রমণের ব্যবস্থা করতে পারা, ইমেল পরিচালনা করতে পারা, সামাজিক কাজ সম্পাদন করতে পারা (যেমন ক্লায়েন্টদের ধন্যবাদ নোট পাঠানো), অথবা ডাটাবেস এন্ট্রি পরিচালনা করতে পারা।

    ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট হওয়ার জন্য চার বছরের ডিগ্রি প্রয়োজন হয় না। বিশেষ দক্ষতা সেটের উপর ভিত্তি করে কিছু ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্টদের আরো নির্দিষ্ট কাজ আছে। উদাহরণস্বরূপ, একটি ভার্চুয়াল সহকারী হিসাবরক্ষণ করা, অনলাইন গবেষণা পরিচালনা করা অথবা কাঁচা(raw) ডেটা ব্যবহার করে উপস্থাপনা তৈরি করা। ২৪ / ৭ ভার্চ্যুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট, অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যাচ, ফ্রিল্যান্সার ডটকম, পিপল পার আওয়ার, আপওয়ার্কের মতো সাইটগুলোতে কাজ পাওয়া যায়। প্রতি ঘন্টায় $ 5- $ 10 (500 থেকে 1000 টাকা) পর্যন্ত আয় করা যায়। প্রয়োজন অনুযায়ী আপনি ২-৮ ঘন্টা বা দিন কাজ করতে পারবেন।
    Fancyhands, VANetworking.com, Upwork, Indeed, 99 Dollar Social, Time Etc এই সাইতগুলো থেকেই শুরু করতে পারেন আপনার ভার্চ্যুয়াল সহকারী।

    ঘরে বসে জিপিটি জব (GPT Job From Home) 

    জিপিটি(GPT )’র মিনিং হলো- গেট পেইড টু টাস্ক, টাকার বিনিময়ে কারো কাজ করে দেয়া। কোন ধরনের কারিগরি জ্ঞান বা কোন টাকা ইনভেস্ট না করেই অনলাইনে আয় করার অন্যতম উপায় হল Get Paid to Task বা GPT জিপিটি সাইটে কাজ করা। ফ্রিল্যান্সিং কাজে ডাটা এন্ট্রি এবং ক্যাপচা থেকে জিপিটি সাইটে কাজ করা সহজ। সাধারণত পিটিসি সাইট গুলো শুধু মাত্র অ্যাড ক্লিক এবং গ্রিড এর মাধ্যমে আয় করার সুযোগ দেয়। তাই পিটিসি সাইট থেকে আনলিমিটেড ইনকাম করা সম্ভব নয়। সেই তুলনায় জিপিটি সাইট থেকে আরও বেশি আয় করা যায়।

    জিপিটি সাইট বিভিন্ন ধরনের কাজ অফার করে থাকে। যেমন – সার্ভে করা, ইমেইল পড়া, ছোট টাস্ক, অ্যাড ক্লিক, গান শুনা, ভিডিও দেখা, অনলাইন সার্চ, ওয়েবসাইট ভিজিট, ফেসবুক পেজ লাইক করা, টুইটার ফলো করা এছাড়া আরও নানা ধরনের কাজ করা।

    জিপিটি (GPT) সাইটে কাজ করে কত ইনকাম হবে?

    রেফারেল ছাড়া প্রতিদিন ২ থেকে ১০ ডলার আয় করা যায় এবং রেফারেল থাকলে ১০০ ডলার বা তার বেশি আয় করা সম্ভব। তাছাড়া জিপিটি সাইটগুলো অ্যাড ক্লিক সহ আরও অনেক কাজের অফার করে তাই পিটিসির তুলনায় আপনি জিপিটি থেকে বেশি আয় করতে পারবেন সহজেই।

    • প্রতি সার্ভের জন্য .৫০ থেকে ৫ ডলার
    • ভিডিও দেখে .০১ থেকে .১০ ডলার
    • অ্যাড ক্লিক করে .০০১ থেকে .০৪ ডলার
    • প্রতি অফার এর জন্য .১ থেকে ৫০ ডলার
    • ছোট কাজের জন্য .১ থেকে ১ ডলার
    • ফেসবুকে প্রতি লাইকের জন্য .০০১ থেকে .০০৪ ডলার

    জিপিটি সাইট গুলো যেমনঃ ক্লিকসেন্স – Clixsense, সোয়াগবাক্স – Swagbucks, CashCrate, ট্রেজারট্রোপার –TreasureTrooper, ওজো – ojooo Wad, makeculous, Earnhoney, PrizeRebel, Get-Paid.

    ঘরে বসেই অনলাইন জরিপ (Complete Online Surveys from Home) 

    আজকাল প্রায় সবাই অনলাইন জানেন এবং ঘরে বসে অনলাইন সার্ভে করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। অনলাইন সার্ভেগুলো হলো পার্টটাইমার, হোমওয়ার্কার, এবং ছাত্রদের জন্য অর্থ উপার্জনের সবচেয়ে ভালো উপায়। যে-সব সাইটগুলোতে ভালো জরিপ রয়েছে, সে-সব সাইটগুলোর সাথে নিবন্ধিত হয়ে বিভিন্ন জরিপ পূরণ করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। 

    ৫ থেকে ৩০ মিনিট সময় নিয়ে কোন প্রতিষ্ঠানের বা ব্র্যান্ডের পণ্যের উপর সার্ভে বা জরিপ করে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারেন। উপরের যে কোন উপায় থেকে অনলাইন সার্ভে করে আপনি আরও বেশি আয় করতে পারবেন।

    সার্ভে করার জন্য আপনাকে উক্ত সেবা বা পন্য সম্পর্কে মতামত দিতে হবে। সার্ভে বা জরিপের ক্ষেত্রে আপনাকে শুধুমাত্র প্রশ্ন থেকে আপনার পছন্দ অনুযায়ী উত্তর নির্বাচন করতে হয়, অতিরিক্ত কিছুই লিখার প্রয়োজন পরে না। আপনার প্রোফাইল এবং জরিপের দৈর্ঘ্যের উপর নির্ভর করে আপনি প্রতিটি সার্ভের জন্য $১ থেকে $২০ পর্যন্ত অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।
    Your Surveys, PrizeRebel, Opinion World, Timebucks, Global Test Market, SwagBucks, ySense এই সাইটগুলো আপনার অনলাইন জরিপ পেশার শুরু করার জন্য হতে পারে অন্যতম।

    লিখুন ঘরে বসেই (Work from Home Writer)

    আপনার যদি ভাল লেখার দক্ষতা থাকে, তাহলে আপনার জন্য ইন্টারনেটে প্রচুর কাজ আছে। আপনি ৫০০ শব্দের কন্টেন্ট এর জন্য ৫$ থেকে ১০$ আয় করতে পারেন। ব্লগ এবং ওয়েবসাইট, কপিরাইট, প্রুফরিডিং, একাডেমিক লিখন ইত্যাদি লেখার মতো লেখার বিভিন্ন ধরনের কাজ রয়েছে।

    iWriter, WriterBay, FreelanceWriting, TextBroker, ExpressWriters.com, FreelanceWritingGigs.com  সাইটগুলোতে আপনি সাইনআপ করে লেখার অনেক কাজ পেতে পারেন।

    বর্তমানে ফ্রিলান্সিং সেক্টরে এই আর্টিকেল রাইটারের জনপ্রিয়তা অনেক । ভালো আর্টিকেল রাইটার পাওয়াই এখন মুশকিল এর ব্যাপার। বিশেষ করে বাংলাদেশে আর্টিকেল রাইটার তেমন পাওয়ায় যায় না । যার ফলে এই সেক্টরে দক্ষ লোকের খুবই অভাব।

    কিন্তু আপনি যদি চেষ্টা করেন মোবাইল দিয়েই ঘরে বসে আর্টিকেল রাইটিং করে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনি যদি প্রফেশনাল মানের রাইটার হন আপনার কাজ পেতে বেগ পেতে হবে না, আপনি অবশ্যই কাজ পাবেন।

    এছাড়াও প্লে স্টোর এ থাকা অনলাইন ইনকাম– অ্যাপ এর সাহায্যেও জানতে পারবেন কিভাবে অনলাইনে টাকা আয় করা যায়।

    দক্ষতা এবং কাজ করার ধৈর্য থাকলে উপরে উল্লেখিত ৫টি কাজ করে খুব সহজেই মাসে ৩০ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব। তাই দেরী না করে দক্ষতা অর্জন এ লেগে পড়ুন এবং অনলাইন ইনকাম করা শুরু করুন। 


    পোস্টটি শেয়ার করুন !

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    কপিরাইট © 2021 BDBasics || সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত